জেলহত্যার পলাতক আসামিদের খোঁজা হচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

জাতীয়, 3 November 2021, 406 বার পড়া হয়েছে,

জেলহত্যা মামলায় পলাতক আসামিদের খুঁজে বের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

বুধবার (৩ নভেম্বর) সকাল ১০টায় রাজধানীর নাজিম উদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে ফুল দেওয়ার পর তিনি একথা জানান।

জেলখানায় প্রবেশ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রথমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর তিনি জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

পরে আসাদুজ্জামান খান বলেন, দেশে দুটি ঘৃণ্যতম হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। যার মধ্যে একটি ১৫ আগস্ট, অন্যটি ৩ নভেম্বর জেলহত্যার ঘটনাটি। এসব কারা ঘটিয়েছে তা সবাই জানে। অনেক হত্যাকারীর বিচার হয়েছে, এদেরও হবে।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচার হয়েছে এবং রায় আংশিক কার্যকর হয়েছে। আর যারা পলাতক আসামি রয়েছেন তাদের আমরা খুঁজে বেড়াচ্ছি। আমরা যখন আসামিদের নিজেদের আওতায় পাবো, তখনই ফাঁসির রায় কার্যকর হবে। জেলহত্যার রায় কার্যকরের জন্য আমরা সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা নিচ্ছি।

১৯৭৭ সালের সেনা বিদ্রোহের প্রসঙ্গ টেনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জিয়াউর রহমান সেনা বিদ্রোহের নামে শত শত লোককে হত্যা করেছে, সেটি একটি ন্যক্কারজনক ঘটনা। এই বিষয়ে হাকোর্টে একটি রিট আবেদন রয়েছে। আমরা রিট আবেদনের রায়ের অপেক্ষা করছি। আমরা চাই দোষীদের যেন বিচার হয়।

এ সময়, হত্যাকারীদের বিচার নিশ্চিতে কমিশন গঠনের দাবি জানান শহীদ পরিবারের সদস্যরা। এর পাশাপাশি জাতীয় পাঠ্যক্রমে জাতীয় চার নেতার জীবনী অন্তর্ভুক্ত করার তাগিদ দেন তারা।

শুধুমাত্র দিবস কেন্দ্রিক স্মরণ না করে, সারাবছরই জাতীয় চার নেতাকে শ্রদ্ধা ভরে মনে রাখার দাবি জানান চার নেতার পরিবারের সদস্যরা।

চার নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শহীদ তাজউদ্দীন আহমদের ছেলে তানজীম আহমেদ সোহেল তাজ, সিমিন হোসেন রিমি, শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীর ছেলে রেজাউল করিম, সংসদ সদস্য হাজী মো. সেলিম, সাবেক সংসদ সদস্য ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ এস এম আনিসুল হক প্রমুখ।