নাসিরনগরে পৌষ সংক্রান্তির মেলায় সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত অর্ধশতাধিক

ব্রাহ্মণবাড়িয়া, 14 January 2022, 265 বার পড়া হয়েছে,

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে পৌষ সংক্রান্তির মেলায় মুড়কি কেনাকে ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে পুলিশসহ প্রায় অর্ধশতাধিক আহত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারী) রাত ৯টা থেকে ১২টা পর্যন্ত থেমে থেমে এ সংঘর্ষ চলে। এ ঘটনায় আজ শুক্রবার সকালে আটজন গ্রামবাসীকে আটক করেছে নাসিরনগর থানা পুলিশ।

স্থানীয়রা জানায়, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পৌষ সংক্রান্তির মেলাকে কেন্দ্র করে উপজেলার কুন্ডা ইউনিয়নের কুন্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের খেলার মাঠে মেলা বসে।

কিন্তু এবছর আবারো করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মেলার আয়োজন নিষিদ্ধ করা হয়। কিন্তু এলাকার কিছু লোক প্রশাসনের নিষেধ উপেক্ষা করে মেলার আয়োজন করে। মেলা বসার পর গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেলা প্রাঙ্গনে গিয়ে মেলা বন্ধ করতে নিদের্শ দেয়। এর কিছুক্ষণ পর আবারো মেলায় বসতে শুরু করে।

রাত ৯টার দিকে মেলা প্রাঙ্গনে কোনা পাড়ার আজিজুল মিয়া ও পশ্চিম পাড়ার জয়নালের মধ্যে শরীরে ধাক্কা লাগা নিয়ে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। বিষয়টি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা মীমাংসা করে দেয়। পরে কোনাবাড়ির আজিজুলের পক্ষের লোকজন জামে মসজিদে মাইকে ঘোষণা দেয় আজিজুলকে পশ্চিম পাড়ার লোকজন মেরে ফেলেছে। এ খবরে কোনাপাড়ার লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পশ্চিম পাড়ার হামলা চালায়।

উভয়পক্ষের সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রন করতে গিয়ে পুলিশও হামলার শিকার হয়। পুলিশ পরিদর্শক আ.স.ম আতিকুর রহমান, এসআই আরিফুল ইসলাম, এসআই জাকির হোসেন, এসআই সারুয়ার আলম, কনস্টেবল ফিরোজ হায়দার আহত হয়। এছাড়াও দুই পক্ষের প্রায় অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়। আহতদের রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

নাসিরনগর থানা পুলিশ পরিদর্শক আ.স.ম আতিকুর রহমান বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আমাদের পাঁচজন পুলিশ সদস্য আহত হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়া হয়। সরাইল সার্কেলের অতিরিক্তি পুলিশ সুপার মো. আনিসুর রহমান বলেন, মেলায় কোনাপাড়া ও পশ্চিম পাড়ার দুই যুবকের মধ্যে তর্কবিতর্কের এক পর্যায়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আমাদের আহত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে এসআই আরিফ গুরুতর আহত হয়।