বীর মুক্তিযোদ্ধা কন্ঠশিল্পী সেহেলী মাসুদের দাফন সম্পন্ন 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া, 4 January 2024, 31 বার পড়া হয়েছে,
শাহাদাত হোসেন সোহেল,ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়া সাংস্কৃতিক অঙ্গনের প্রিয় মুখ, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব, মহান মুক্তিযুদ্ধের কন্ঠ যোদ্ধা, বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনের কন্ঠশিল্পী, তিতাস ললিত কলা একাডেমীর অধ্যক্ষ সেহেলী মাসুদ ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিওন। চিকিৎসাধীন অবস্হায় তিনি ঢাকা শেরেবাংলা নগরে অবস্হিত হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ০৫ঃ৪৫ মিনিটে হৃদরোগের ক্রীয়া বন্ধ হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।
মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল (৭০)বছর। তিনি দুই ছেলে ও এক মেয়েসহ তাঁর অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। সেহেলী মাসুদ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব বাংলাদেশ টেলিভিশনের সুরকার আলী মোসাদ্দেক মাসুদের সহধর্মিনী।এদিকে বীর মুক্তিযোদ্ধা সেহেলী মাসুদের আকস্মিক মৃত্যুতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাংস্কৃতিক অঙ্গনে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। মৃত্যু সংবাদ শোনার পরপরই শোক প্রকাশ করেছে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো। গভীর রাতে ঢাকা থেকে তার লাশবাহী গাড়ী  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মৌলভি পাড়াস্হ বাসভবনে নিয়ে এলে সকালে সাংস্কৃতিক অঙ্গন থেকে শুরু করে তার অসংখ্য শুভাকাঙ্ক্ষী ও আত্মীয়-স্বজন তাকে শেষ যাত্রায় এক নজর দেখতে সেখানে ভীড় জমান। পরে যোহর নামাজের পর মৌলভী পাড়াস্হ মসজিদের পাশের মাঠে তার লাশ রাখা হলে রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে সদর উপজেলা ভূমি মোঃ মোশারফ হোসেনের নেতৃত্বে একদল চৌকস পুলিশ সদস্যের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধাসহ তাকে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সম্মান গার্ড অফ অনার প্রদান করে। পরবর্তীতে জানাযার নামাজ শেষে তাকে ঐতিহ্যবাহী শেরপুর গোরস্থানে দাফন করা হয়। জানাজার নামাজে পরিবারের লোকজন ছাড়াও  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সকল স্তরের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গ, সাংবাদিক, আত্মীয়-স্বজন, গুনগ্রাহী, শুভাকাঙ্ক্ষীসহ সকল পর্যায়ের লোকজন অংশগ্রহন করেন।