কসবা নিবার্চন অফিসের চুরি হওয়া ৩০টি মনিটর উদ্ধার, গ্রেফতার-৪

ব্রাহ্মণবাড়িয়া, 28 September 2022, 172 বার পড়া হয়েছে,
শেখ মো. কামাল উদ্দিন, কসবা (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) সংবাদদাতা : কসবায় উপজেলা নির্বাচন অফিসের ইভিএম’র মনিটর ও অন্যান্য সরঞ্জাম চুরির দায়ে গত মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলা নির্বাচন অফিসের অফিস সহকারীসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে কসবা থানা পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে চুরি যাওয়া ৩০টি ইভিএম’র মনিটর ২টি ব্যাটারী ও ৪টি কন্ট্রোল ইউনিটের ব্যাটারী উদ্ধার করা হয়েছে।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন; অফিস সহকারী মোহাম্মদ আলী (৪৩), কসবা পৌর শহরের বগাবাড়ি গ্রামের মৃত আলী আজ্জম এর ছেলে মো. মাহফুজুর রহমান (৩৪), কসবা সরকারি কোয়ার্টারের গোমতী হাউজের ফুল মিয়ার ছেলে মো. মাসুদ (২৩) এবং কসবা উপজেলার গোপীনাথপুর ইউনিয়নের ধজনগর গ্রামের মো. মোখলেছুর রহমানের ছেলে গিয়াস উদ্দিন শিমুল (১৪)।
গ্রেপ্তারকৃতদের বুধবার ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্যাট আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।
উপজেলা নির্বাচন অফিস, পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কসবা উপজেলায় বিভিন্ন নির্বাচনের কাজে ব্যবহৃত ইভিএম, মনিটর, ব্যাটারীসহ অন্যান্য মালামাল কসবাস্থ জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সংরক্ষণ করা হয়েছিল। গত ২৩ জুলাই রাতে ওই জেলা পরিষদ মিলনায়তন থেকে মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়। পরদিন ২৪ জুলাই উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. জাসিদুল ইসলাম কসবা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ইভিএম’র ৩৯টি মনিটর, ১০টি মনিটর কন্ট্রোল ব্যাটারী, ১০টি ইভিএম’র ব্যাটারী চুরি হয়েছে বলে উল্লেখ করেন। গত মঙ্গলবার রাতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কসবা থানার উপ-পরিদর্শক মো. এমরান হোসেন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মো. মাহফুজুর রহমানের মালিকানাধীন এফ.এম কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এবং তার বাড়ি থেকে ওই মালামাল উদ্ধার করেন।
মাহফুজুর রহমানের স্বীকারোক্তিতে রাতেই অন্য আসামীদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কসবা থানার অফিসার ইনর্চাজ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন জানান, নির্বাচন অফিসের চুরি হওয়া অন্যান্য মালামাল উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।
জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সংরক্ষিত নির্বাচনের কাজে ব্যবহৃত ইভিএম’র ৩৯টি মনিটর, ১০টি মনিটর কন্ট্রোল ব্যাটারী, ১০টি ইভিএম’র ব্যাটারী চুরি হওয়া বিষয়টি কসবা উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. জাসিদুল ইসলাম স্বীকার করেন।