বাঞ্ছারামপুরে বাবুল হত্যা: ফাঁসির সাজা কমে যাবজ্জীবন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া, 18 August 2021, 406 বার পড়া হয়েছে,

আদিত্ব্য কামাল : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে ২০০২ সালে শামসুল হক বাবুল হত্যার দায়ে রবিউল আউয়াল নামে এক আসামির মৃত্যুদণ্ডের সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

বুধবার (১৮ আগস্ট) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ভার্চ্যুয়াল আপিল বেঞ্চ এ রায় দেন। আদালতে আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী নজরুল ইসলাম চৌধুরী। বাদীপক্ষে আমেরিকা থেকে ভার্চ্যুয়ালি শুনানিতে অংশ নেন অ্যাডভোকেট মুনসুরুল হক চৌধুরী। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ।

যাবজ্জীবন দণ্ডের পাশাপাশি আসামিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।এছাড়া তাকে অবিলম্বে কনডেম সেল থেকে স্বাভাবিক সেলে স্থানান্তর করতেও নির্দেশ দেওয়া হয়।

স্থানীয় মানিকপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান প্রার্থী শামসুল হক বাবুলকে ২০০২ সালের ১৭ জুলাই রাতে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তদন্ত শেষে পুলিশ রবিউল আউয়াল, তার আপন দুই ভাই ইমান আলী ও কবির হোসেনসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে।
এ মামলার বিচার শেষে বিচারিক আদালত ২০০৮ সালের ২৭ জানুয়ারি রবিউল আউয়াল, তার আপন দুই ভাই ইমান আলী ও কবির হোসেন এবং প্রতিবেশী আলমগীরকে মৃত্যুদণ্ড দেন। রায়ের সময় রবিউল ছাড়া অপর তিন আসামি পলাতক ছিলেন। বাকি ১৩ জনকে খালাস দেন আদালত। পরে নিয়ম অনুসারে মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য হাইকোর্টে ডেথ রেফারেন্স পাঠানো হয়। পাশাপাশি রবিউল আপিল করেন।

ওই ডেথ রেফারেন্স ও আসামির আপিলের শুনানি শেষে হাইকোর্ট ২০১৩ সালের ৭ মে রবিউলসহ চার আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখে রায় দেন। এরপর রবিউল আপিল বিভাগে আপিল করেন।