চেতনার অধিকার – নুসরাত জাহান জেরিন

সাহিত্য, 20 February 2022, 329 বার পড়া হয়েছে,

ফাগুনের আগুনঝরা মাসে
বসন্তদিনে আনন্দ কিংবা শোকে-
রক্ত রাঙা লাল কৃষ্ণচূড়া দেখলে
শৈশব কৈশোরে পাঠ্যবইয়ের পড়া
কবি “আল মাহমুদের”সেই
একুশের কবিতা’র কথা মনে পড়ে যায়।
মনে পড়ে যায়-
একুশের গান, সেই….একুশের গান,
“আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো,
একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি”!

মনে পড়ে যায়-“ওগো ওরা বলে”
সজনে ডাটা,কুমড়ো ফুলের কথা!
মনে পড়ে যায়-
রেললাইনের ধারে মেঠোপথে,
শুভ্র সাদা শাড়ির আঁচলে,
অশ্রু লুকানো মায়ের মুখ,
ব্যাকুলতায় উদ্বিগ্ন মন,দুইটি চোখ,
আর মধ্যবয়সী মায়ের বিরতিহীন অপেক্ষা।
মনে পড়ে যায়-
রক্তাক্ত রাজপথ,সালাম বরকত!
আজও ভেসে আসে কানে-
সাদাকালো সিনেমার আলোকচিত্রের মতোন
ভাষার দাবী নিয়ে,১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে,
উত্তাল সমুদ্রের মতন প্লেকার্ড হাতে নিয়ে,
স্লোগান দিচ্ছে-
“রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই,রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই”

নব রূপে জাগ্রত হওয়ার নেশায়,
মনে পড়ে যায়-
অস্তিত্ব ভাঙনের খেলায়,
যারা গলায়,উচ্চারিত জিহ্বায়,প্রতিবাদী কন্ঠে
হাতুড়ি পিটিয়ে পেরেক দিতে চেয়েছিলো!
আজও যারা দিতে চায়,বন্ধ করতে চায় কন্ঠ-
এই স্বাধীন দেশে উত্তরাধিকারসূত্রে পাওয়া,
রক্তে কেনা; আমাদের সেই ন্যায্য মুক্ত কথা বলার অধিকার।
একুশ এলেই বলি- স্বাধীনতা কোথায়?
আমি কথা বলতে চাই
আমাকে বলতে দেওয়া হউক!
একুশ এলেই দাবী তুলি-
স্বাধীন দেশে বাকস্বাধীনতা দেওয়া হউক, অন্যায়-অত্যাচার,যা কিছু অশুভ,
সব সবকিছু বন্ধ হউক।
একুশের চেতনা জাগ্রত হউক,থাকুক।