শাহরাস্তিতে স্কুলছাত্র বলৎকারের অভিযোগে ইউপি আ. লীগ নেতা গ্রেফতার

সারাদেশ, 2 September 2021, 432 বার পড়া হয়েছে,
চাঁদপুর প্রতিনিধি : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে দশম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রকে বলৎকারের অভিযোগে মো. আজাদ হোসেন (৪২) নামের এক ইউপি আওয়ামী লীগ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
মো. আজাদ হোসেন উপজেলার রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়ন অন্তর্ভুক্ত ৬ নং ওয়ার্ডের দহশ্রী গ্রামের বাসিন্দা।
এব্যাপার শাহরাস্তি মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইন ২০০০ সংশোধনী ২০০৩ এর ৯(৪)(খ) ধারায় ঘটনার শিকার স্কুলছাত্রের বাবা বাদী হয়ে শাহরাস্তি মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের  করেন। শাহরাস্তি মডেল থানার মামলা নম্বর-০৩, তারিখঃ-০১/০৯/২০২১ ইং।
জানাযায়, শাহরাস্তি উপজেলার রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়নের দহশ্রী গ্রামের বাসিন্দা আজাদ হোসেন গত ৩০ আগস্ট সোমবার সকাল ১০ টার দিকে একই গ্রামের দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রকে মুঠোফোনে অশ্লীল ছবি দেখার প্রস্তাব দেয়। ওই সময় স্কুল ছাত্র মাঠে নিজেদের পালিত ছাগল ছড়াচ্ছিলো। ভন্ড আজাদ হোসেনের পিড়াপীড়িতে রাজী না হওয়ায় এক পর্যায়ে আজাদ তাকে জোর পূর্বক পাশের বাগানে নিয়ে যায় এবং জোরপূর্বক তার পরিধেয় বস্ত্র খুলে বলৎকার করে। এসময় ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে বিষয়টি পাশের রাস্তা দিয়ে যাতায়তকারী পথিকদের নজরে আসে এবং পথিকদের ২জন এগিয়ে গেলে ভন্ড আজাদ দৌড়ে পালিয়ে যায়।
ওই সময় স্কুল ছাত্র ভয়ে দৌড়ে বাড়ি চলে গিয়ে তার বাবাকে বিস্তারিত জানায়। উক্ত নেক্কারজনক ঘটনার বিচার চেয়ে নির্যাতিত স্কুল ছাত্রের বাবা এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে স্থানীয় সমাজপতিগন এই নেক্কারজনক ঘটনার সালিশের উদ্দেশ্যে ৩১ আগস্ট রাতে স্থানীয় শাহরাস্তি স্টেশন বাজারে বিচারে বৈঠকে বসেন। বৈঠকে অভিযুক্ত আজাদ হোসেন তার কৃতকর্মের জন্য নিঃশর্ত ক্ষমা চান। কিন্তু বিষয়টি নেক্কারজনক ঘটনা হওয়ায় এনিয়ে এলাকায় নানান কানাঘুষা চলতে থাকে। রাতে বিষয়টি শাহরাস্তি মডেল থানা পুলিশ জানতে পেড়ে, থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবদুল মান্নানের নির্দেশে খিলাবাজার ফাঁড়ি থানার ইনচার্জ ইন্সপেক্টর আসাদুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ অভিযান চালায়। কিন্তু ধূর্ত আজাদ হোসেন আগেই পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।
বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) বিকেলের দিকে শাহরাস্তি স্টেশন বাজার এলাকায় ভন্ড আজাদ হোসেন ঘোরাফেরা করতেে দেখে বাজরে থাকা লোকজন তাকে ধরে গনপিটুনি দিয়ে শাহরাস্তি মডেল থানায় খবর দিলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে এবং সন্ধ্যা পোনে ছয়টার দিকে থানায় নিয়ে যায়।
পরে, বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) অভিযুক্ত আজাদ হোসেনকে চাঁদপুর কোর্টের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। উল্লেখ্য, এবিষয়ে বিজ্ঞ চাঁদপুর জর্জ আদালতে বলৎকারের শিকার হওয়া স্কুল শিক্ষার্থী উপস্থিত হয়ে বিজ্ঞ আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন বলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ইন্সেপেক্টর মো. আসাদুল ইসলাম নিশ্চিত করেছেন।
উল্লেখ্য, আজাদ হোসেন শাহরাস্তি উপজেলার রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের দহশী গ্রামের বাসিন্দা। সে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়নের  যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন বলে জানাযায়। আগামি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সে সদস্য পদপ্রার্থী। ইতিপূর্বেও আজাদ হোসেনের বিরুদ্ধে শিশু বলৎকারের এমন কয়েকটি ঘটনার অভিযোগ রয়েছে বলে এলাকার অনেকেই জানান।
শাহরাস্তি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আবদুল মান্নান এঘটনার বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
এলাকাবাসী ভন্ড আজাদ হোসেনের এ নেক্কারজনক ঘটনার কঠোর ও কঠিন বিচারের দাবী করছেন। তারা বলেন, আমরা চাই ভন্ড আজাদ হোসেনের রাষ্ট্রীয় বিধানমতে এমন বিচার হোক যা দেখে ও শুনে ভবিষ্যতে এমন বে-বিচারের ঘটনা আর কেউ ঘটানোর সাহস যেন না করে।