খুচরা বাজারে সয়াবিন তেলের চরম সংকট

ব্রাহ্মণবাড়িয়া, 5 May 2022, 185 বার পড়া হয়েছে,

এম মনসুর আলী, সরাইল,ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলের বিভিন্ন খুচরা বাজারে সয়াবিন তেলের চরম সংকট দেখা দিয়েছে। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তেল না পেয়ে একের পর এক দোকান ঘুরতে হচ্ছে ক্রেতাদের।

অন্যদিকে যেসব দোকানে তেল রয়েছে, তারা গায়ের মূল্যের থেকে লিটার প্রতি ৪৫ থেকে ৫০ টাকা বেশি দামে বিক্রি করছেন।

খোলা তেলও বিক্রি হচ্ছে বোতল জাত তেলের থেকে বেশি দামে। প্রতি লিটার খোলা তেল ২১০ টাকা।
ব্যবসায়ীরা বলছেন, অগ্রিম টাকা দিয়েও কোম্পানি থেকে তেল পাচ্ছেন না।

বৃহস্পতিবার (৫মে) দুপুরে সরাইল উপজেলার অরুয়াইল বাজারসহ বিভিন্ন দোকানে ঘুরে দেখা যায় বেশিরভাগ দোকানে বোতলজাত সয়াবিন তেল নেই।

যেসব দোকানে বোতলজাত সয়াবিন তেল রয়েছে, তারা গায়ের মূল্য (১৫৬)মুছে ফেলে ২১০ টাকা লিটার বিক্রি করছেন।

এছাড়া খোলা তেল বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ২১০ টাকা পর্যন্ত। ভোক্তারাও বাধ্য হয়ে কিনছেন অতিরিক্ত দামে।

বাজার থেকে তেল কিনতে আসা লিয়াকত আলী আজকের পত্রিকাকে বলেন, সয়াবিন তেলসহ নিত্য প্রয়োজনীয় কিছু পণ্য কিনতে বাজারে আসছিলাম। অন্য সব পণ্য কিনে তিন দোকান ঘুরে এক দোকানে সয়াবিন তেল পেয়েছি।গায়ের দাম মুছে ফেলেছে দোকানদার। ২১০ টাকায় রুপচাঁদা কোম্পানির এক লিটার তেল কিনেছি।

বোতল জাত তেল না পেয়ে ২১০ টাকা লিটারে তেল কিনে বাড়ি ফিরছেন জাহের আলী নামের এক ব্যক্তি। তিনি আজকের পত্রিকাকে বলেন,কয়েক দোকান ঘুরলাম বোতলজাত তেল পেলাম না, তাই বাধ্য হয়ে দুই লিটার খোলা তেল কিনেছি। জীবনে এই প্রথম ২১০ টাকা লিটার দিয়ে সয়াবিন তেল কিনলাম।

উপজেলার অরুয়াইল বাজারের মুদির দোকানদার আবু তালেব বলেন, দেড় মাস ধরে কোম্পানি থেকে কোনো তেল দিচ্ছে না আমাদের। গ্রাহকদের চাহিদা থাকা স্বত্ত্বেও আমরা তেল বিক্রি করতে পারছি না।

অরুয়াইল বাজারের মুদি দোকানি রাজু আজকের পত্রিকাকে বলেন, রমজানের আগ থেকে ডিলাররা আমাদের তেল দেয় না। মাঝে মধ্যে দিতে চাইলেও ক্রয়ের রসিদ দিতে চায় নি। এছাড়া বোতলের গায়ের মূল্য থেকে ৩০/৪০ টাকা বেশী চায় বলে আমরাও তেল রাখি না। তেল বিক্রি করতে না পারায় আমরা যেমন ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি, তেমনি কাস্টমারও হারাচ্ছি।