কবি আমির হোসেন এর সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

ব্রাহ্মণবাড়িয়া, 18 December 2021, 431 বার পড়া হয়েছে,

নিজস্ব প্রতিবেদক : ‘বঙ্গমৈত্রী’ সম্মাননা পদক অর্জন করায় কবির কলম-এর উদ্যোগে কবি ও কথাসাহিত্যিক আমির হোসেন-কে সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (১৭ ডিসেম্বর) বিকেলে নিয়াজ মুহাম্মদ উচ্চ বিদ্যালয়ের হল রুমে বিকেল ৩টায় এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর থেকে আগত বাংলাদেশের প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক ও গবেষক রফিকুর রশীদ।

”দেশের ইতিহাস ঐতিহ্য সংরক্ষণ, অসাম্প্রদায়িক মনোভাব ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণকারী প্রজন্ম তৈরী করতে হলে, ছেলে-মেয়েদের বই পড়ায় আগ্রহী করে তুলতে হবে। লেখক, কবি, সাহিত্যিক ও সাংবাদিকগণ দেশ-জাতীর অতন্দ্রপ্রহরী। তারা দেশের মানুষের ঘুমন্ত বিবেককে জাগ্রত করে। কথাসাহিত্যে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ কোলকাতা-ঢাকা-মৈত্রী পরিষদ কর্তৃক ‘বঙ্গমৈত্রী’ সম্মাননা পদক অর্জন করায় বহু গ্রন্থ প্রণেতা, কবি ও কথাসাহিত্যিক আমির হোসেন-কে সংবর্ধনা দিয়েছে কবি ও কবিতা বিষয়ক সংগঠন কবির কলম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া। -প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক ও গবেষক রফিকুর রশীদ”।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাহিত্য একাডেমির সভাপতি কবি ও গবেষক জয়দুল হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক, খ্যাতিমান সাংবাদিক জাবেদ রহিম বিজন, সুরসম্রাট দি আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কবি ও নাট্যব্যক্তিত্ব আবদুল মান্নান সরকার, বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক (সিলেট অঞ্চল) বাচিকশিল্পী মনির হোসেন, জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগার এর সহকারী পরিচালক সাইফুল ইসলাম লিমন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো: আলী আজম। মালাইশিয়া থেকে টেলিফোনে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট নাট্যকর্মী শরিফ আহমেদ রাজা।

কবির কলমের সভাপতি কবি মনিরুল ইসলাম শ্রাবণ এর সভাপতিত্ব অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সরাইল সাহিত্য ভুবন গণগ্রন্থাগারের সভাপতি কবি আবুল কাসেম তালুকদার, গোর্কণঘাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, রম্য লেখক পরিমল ভৌমিক, বঙ্গবন্ধু সাংস্কতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক মমিনুল আলম বাবু, আশুগঞ্জ ফিরোজ মিয়া সরকারি কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক কবি এম এ হানিফ, সাহিত্য একাডেমির সাধারণ সম্পাদক মোঃ নুরুল আমিন, কবি ও গল্পকার রাশিদ উল্লাহ তুষার, চেতনায় স্বদেশ গণগ্রন্থাগারের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ পুতুল বেগম, নারীনেত্রী ও সমাজ কর্মী বিনা আক্তার।

কবির কলমের সহ-সভপতি আব্দুল মতিন শিপন এর উপস্থাপনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি কবি সুমন সাহা, সহ-সভাপতি কবি ও গীতিকার গাজী তানভির আহমেদ, সহ-সভাপতি কবি ও ছাত্রনেতা ফাহিম মুনতাসির। স্বাগত বক্তব্য রাখবেন কবির কলমের নব নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন তানভির ইকরাম। সংবর্ধিত কবিকে উৎসর্গ করে কবিতা পাঠ করেন সহ-সভাপতি কবি আফসানা জাহান শশি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কবি শরীফ সরকার। অনুষ্ঠানটি সাবির্ক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন কবির কলমের সিনিয়র সহ-সভাপতি কবি হুমায়ূন কবির। অনুষ্ঠানে সংবর্ধীত অতিথিকে সম্মাননা স্মারক ও প্রধান অতিথিকে বই উপহার প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, বই মানুষকে অন্ধকার থেকে আলোর পথে নিয়ে আসে, মানুষকে সভ্য ও উন্নত জাতী হিসেবে তৈরী করে। দেশের ইতিহাস ঐতিহ্য সংরক্ষণ, অসাম্প্রদায়িক মনোভাব ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণকারী প্রজন্ম তৈরী করতে হলে ছেলে-মেয়েদের বই পড়ায় আগ্রহী করে তুলতে হবে। বক্তব্যে তিনি আরো বলেন লেখক, কবি, সাহিত্যিক, সাংবাদিকগণ দেশ জাতীর অতন্দ্রপ্রহরী। তারা দেশের মানুষের ঘুমন্ত বিবেককে জাগ্রত করে। তাই তিনি বেশি বেশি সাহিত্যচর্চার উপর গুরুত্বারোপ করে সাহিত্য কর্মকাণ্ডে পৃষ্ঠোপোষকতা দিতে সবার প্রতি আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে কবি জয়দুল হোসনে তার বক্তব্যে বলেন, কবি ও কথা সাহিত্যিক আমির হোসেন দীর্ঘদিন যাবৎ সাহিত্য সাধনায় নিয়োজিত আছেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন জাতীয় ও বিভিন্ন জেলার আঞ্চলিক পত্র-পত্রিকায় তার লেখা বিভিন্ন সাহিত্যকর্ম নিয়মিতভাবে প্রকাশিত হচ্ছে। তার নিরলস প্রচেষ্টায় ইতিমধ্যে বাংলা সাহিত্যে যুক্ত হয়েছে বিভিন্ন বিষয়ে ২৭টি বই। এসব কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে তিনি একদিকে নিজেকে যেমন সুপরিচিত করে তুলেছেন, তেমনি ভাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতীত ঐতিহ্য ধরে রাখতে কাজ করে যাচ্ছেন।

সংবধর্নার জবাবে কবি আমির হোসেন বলেন, আমি আমার জীবন সাহ্যিত সাধনায় উৎসর্গ করেছি। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন। আমার এই সম্মাননা আমার সকল  শুভাকাংঙ্খী ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সকল গুণীজনের প্রতি উৎর্সগ করলাম।

অনুষ্ঠানে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের অর্ধশত নেতা-কর্মী, কবি, সাহিত্যিক সাংবাদিক ও শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।