ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কবি এস এম শাহনূরের কাব্যগ্রন্থ স্বর্গছায়া

সাহিত্য, 30 January 2024, 53 বার পড়া হয়েছে,

বাংলা একাডেমি আয়োজিত অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২৪ এ মেলাপ্রাঙ্গণে বাংলা সাহিত্যের বরেণ্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে মোড়ক উন্মোচিত হবে কবি এস এম শাহনূরের কাব্যগ্রন্থ স্বর্গছায়া। প্রকাশনা জগতে প্রাচীন প্রতিষ্ঠানগুলোর অন্যতম পাণ্ডুলিপি প্রকাশন থেকে প্রকাশিত বইটির চমৎকার প্রচ্ছদ এঁকেছেন শিল্পী সাগর। বইটির মুদ্রিত মূল্য মাত্র ৩০০ টাকা।

রকমারি ডটকম সহ বাংলাদেশের সকল অভিজাত লাইব্রেরিতে বইটি পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন প্রকাশক বায়েজীদ মাহমুদ ফয়সল। বইটি সম্পর্কে প্রকাশক জানান, ” স্বর্গছায়া কাব্যগ্রন্থটি অমর একুশে গ্রন্থমেলার শুরু থেকে শেষ সময় পর্যন্ত পান্ডুলিপি প্রকাশন, স্টল নম্বর ২৫৫ তে ডিসকাউন্টসহ পাওয়া যাবে।

বইটির পরতে পরতে ভিন্ন স্বাদ, বর্ণ ও ভাবের একগুচ্ছ কবিতা পাঠকের জন্য অপেক্ষা করছে। সত্য ও সুন্দরের পথে বুদ্ধিবৃত্তিক সাহিত্য চর্চাকে আগামীর কাছে নান্দনিকভাবে উপস্থাপনের মধ্য দিয়ে কবি তাঁর জন্মঋণ শোধ করার প্রাণান্ত চেষ্টায় সফল হয়েছেন। এই কাব্যগ্রন্থের পাঠক মাত্রই নিজেকে মঙ্গল চিন্তায় সমৃদ্ধ করবেন।”

-বইটির বিশেষত্ব তুলে ধরে কবি এস এম শাহনূর বলেন, “এটি এমন এক কাব্যগ্রন্থ যেখানে পাঠক মাত্রই নতুনত্ব খুঁজে পাবেন। আবৃত্তি করার মত বেশ কিছু কবিতা রয়েছে বইটিতে। রয়েছে সন্তানকে নিবেদন করার মত চমৎকার কিছু পঙক্তিমালা। প্রকৃতি ও মহাকাশ সম্পর্কেও কবিতা রয়েছে বইটিতে। ”

শুধু সামসময়িক বাংলা সাহিত্যে নয়। বাংলা সাহিত্যের সীমানা পেরিয়ে আন্তর্জাতিক সাহিত্যঙ্গনের এক সুপরিচিত নাম, বহুমাত্রিক লেখক ও গবেষক এস এম শাহনূর। তিনি ৮ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৯ খ্রিস্টাব্দে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলাধীন বল্লভপুর গ্রামের এক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অলিখিত ইতিহাস ও ঐতিহ্য আগামী প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে তাঁর কলম চলে অবিরাম। পিতার নাম- হাজী আবদুল জাব্বার, মাতার নাম- জাহানারা বেগম। ছোটবেলা থেকেই কবিতা ও গল্প লেখায় হাতে খড়ি। ছাত্র জীবনে তিনি ছিলেন প্রতি পরীক্ষায় ফার্স্ট হওয়া অত্যন্ত মেধাবী ছাত্র। সমাজ বিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর (এমএসএস) এবং মেরিন এন্ড ওয়্যারফেয়ার একাডেমি অব চায়না থেকে উচ্চতর প্রযুক্তি বিষয়ে পড়াশোনা করেন। কর্মজীবনে জাতিসংঘের UNIFIL এ দীর্ঘ সময় কর্মরত ছিলেন। চষে বেড়িয়েছেন ইউরোপ-এশিয়ার নানান দেশ। গবেষণাধর্মী, ভ্রমণ, জীবনী, ইতিহাস-ঐতিহ্য ও কবিতাসহ তাঁর একাধিক গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।  ২০০৫ সালে অমর একুশে বই মেলায় ‘স্মৃতির মিছিলে’ নামক প্রথম কাব্যগ্রন্হ প্রকাশিত হয়। বিশ্বের একনম্বর প্রকাশনা সংস্থা আমাজন থেকে প্রকাশিত বহু গ্রন্থে তাঁর লেখা স্থান পেয়েছে। গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস এর অন্তর্ভুক্ত আন্তর্জাতিক অ্যান্থলজি BOOK OF HYPERPOEM এর তিনি একজন বাংলাদেশী কবি। বিশ্বের ৩০টি ভাষায় অনূদিত হয়েছে তাঁর লেখা এবং দেশ বিদেশের নানান পত্রিকা ও সাময়িকীতে নিয়মিতভাবে প্রকাশিত হচ্ছে। সাহিত্য কর্মের স্বীকৃতিস্বরূপ দেশ বিদেশ থেকে প্রাপ্ত বহু পুরস্কার ও সম্মাননা তাঁর ঝুলিতে জমা আছে। এগুলোর মধ্যে বিশ্ববাঙালি সম্মাননা, কবি আল মাহমুদ স্মৃতি পদক, জাগ্রত ডক্টরেট নক্ষত্র সম্মাননা, কাজাকিস্তান থেকে রহিম করিম ওয়ার্ল্ড লিটারেচার প্রাইজ, ফ্রান্স থেকে ওয়ার্ল্ড পোয়েট অ্যাওয়ার্ড উল্লেখযোগ্য।

শিশু অধিকার বিষয়ক কবিতা ও নিজস্ব সংস্কৃতিকে মৌলিক লেখার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করায় আমেরিকান ইউনিভার্সিটি অব মিলফোর্ড – ইউএসএ, তাঁকে (আন্তর্জাতিক সাহিত্যে) সম্মানসূচক ডক্টরেট (ডি লিট) ডিগ্রি প্রদান করেন। তাঁর এ অসামান্য অর্জন বাংলা সাহিত্য ও বাংলাদেশের জন্য এক গৌরবের অধ্যায়। আলোকিত সমাজের প্রত্যাশায় একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে নিজেকে অকৃপণভাবে নিয়োগ করেছেন। ব্যক্তি জীবনে স্ত্রী ও একমাত্র কন্যা সামীহা নূর জারা কবির সুখ রাজ্যের সারথি। সৃষ্টিশীলকর্মে নিবেদিত এ তারুণ্যের কবি বর্তমানে জাতীয় দৈনিক ঐশী বাংলা’র সাহিত্য সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।