পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্সে কাল থেকে লাগবে ডোপ টেস্ট সনদ

সারাদেশ, 29 January 2022, 147 বার পড়া হয়েছে,

নিজস্ব প্রতিবেদক : পেশাদার মোটরযান চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে ডোপ টেস্ট করা বাধ্যতামূলক হচ্ছে। রোববার থেকে নতুন এ নিয়ম কার্যকর হচ্ছে। পেশাদার মোটরযান চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স ইস্যু ও নবায়নের সময় প্রার্থীর আবেদনপত্রের সঙ্গে সরকারি হাসপাতাল থেকে করা ডোপ টেস্টের সনদ দাখিল করতে হবে বিআরটিএতে।

পরিবহন চালকদের মাদকাসক্ত অবস্থায় গাড়ি চালানো বন্ধ করতে ২০২০ সালের ২২ অক্টোবর জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চালকদের ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক করার নির্দেশনা দিয়েছিলেন। সেই নির্দেশনা এবার বাস্তবায়ন হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিআরটিএর পরিচালক (রোড সেফটি) শেখ মোহাম্মদ মাহবুব-ই-রব্বানী বলেন, ‘আমরা কাল (রোববার) থেকে বিষয়টি কার্যকর করব। কাল যারা পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে আসবে তাদের ডোপ টেস্টের সনদ লাগবে।’

এদিকে গত ১৩ জানুয়ারি ডোপ টেস্ট বিষয়ক পরিপত্রে বলা হয়েছে, ডোপ টেস্টের রিপোর্ট যদি পজিটিভ (মাদক সেবনের আলামত পাওয়া গেলে) বা তাতে কোনো বিরূপ মন্তব্য থাকলে পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স ইস্যু বা নবায়ন করা যাবে না। এই ডোপ টেস্ট সারা দেশে সব পর্যায়ের সরকারি হাসপাতালে এবং ঢাকা মহানগরীর ক্ষেত্রে ছয়টি প্রতিষ্ঠান থেকে করা যাবে। ঢাকার প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকার শেরে বাংলা নগরের জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ল্যাবরেটরি মেডিসিন অ্যান্ড রেফারেল সেন্টার ও জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (নিটোর), মহাখালীর জাতীয় বক্ষব্যাধি ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল এবং কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল। এরই মধ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এ সম্পর্কিত দুটি পরিপত্র জারি করা হয়েছে।

এ ছাড়া মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অধীনে অনুমোদিত কোনো ল্যাব বা প্রতিষ্ঠান থাকলে সেখানেও পেশাদার মোটরযান চালকদের ডোপ টেস্ট করা যাবে।

এ সংক্রান্ত পরিপত্রে বলা হয়, পরীক্ষার পর সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল বা প্রতিষ্ঠান ডোপ টেস্টের রিপোর্ট অনলাইনে সংশ্লিষ্ট বিআরটিএর সহকারী পরিচালক (ইঞ্জিনিয়ারিং) বা লাইসেন্সিং কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠাবে এবং মূল কপি প্রার্থীর কাছে হস্তান্তর করবে। প্রার্থী উক্ত ডোপ টেস্ট রিপোর্ট পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স ইস্যু বা নবায়নকালে আবেদনপত্রের সঙ্গে সংযুক্ত করে জমা দেবেন। বিআরটিএর সংশ্লিষ্ট সহকারী পরিচালক ও লাইসেন্সিং কর্তৃপক্ষ ওই রিপোর্ট অনলাইনে যাচাই শেষে পরবর্তী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। এ বিষয়ে বিআরটিএর সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় উপপরিচালক (ইঞ্জিনিয়ারিং) এবং সহকারী পরিচালক (ইঞ্জিনিয়ারিং) গণ ডোপ টেস্ট সম্পাদনকারী সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল বা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমন্বয় করবে।