একমাস পর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এলো শিশুদের ইপিআই টিকা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া, 1 March 2023, 55 বার পড়া হয়েছে,
নিউজ ডেস্ক : দীর্ঘ একমাস পর শিশুদের জন্ম পর ধাপে ধাপে দেওয়া সম্প্রসারিত টিকা দান কার্যক্রমের (ইপিআই) টিকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় এসে পৌঁছেছে। সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারী) বিকেলে মেড্ডাস্থ ইপিআই সুপারিন্টেন্ডেন্ট এর কার্যলয়ের স্টোরে এসে পৌঁছায়।
সোমবার মধ্যরাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন ডা. একরাম উল্লাহ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এরআগে, রোববার ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একমাস ধরে নেই শিশুদের ইপিআই টিকা’ শিরোনামে দেশের শীর্ষ নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ সংবাদ প্রকাশ করে।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ইপিআই কর্মসূচিতে শিশুদের রোগ প্রতিরোধযোগ্য বিভিন্ন ধাপে টিকা প্রদান করা হয়। এর মধ্যে রয়েছে যক্ষা, পোলিও, ডিফথেরিয়া, হুপিং কাশি, ধনুষ্টংকার, হেপাটাইটিস-বি, হিমোফাইলাস ইনফ্লুয়েঞ্জা-বি জনিত রোগ, হাম, নিউমোকক্কাল জনিত নিউমোনিয়া, রুবেলা। সময়সূচি অনুযায়ী টিকা না নিলে শিশুর মারাত্মক সংক্রামক রোগসমূহের বিরুদ্ধে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হবে না। শিশু জন্মের পর প্রথম বিসিজি টিকা দিতে হয়। শিশু ৬ সপ্তাহ হলে আইপিভি টিকার প্রথম ডোজ ও ১৪ সপ্তাহ বয়সে ২য় ডোজ দিতে হয়। একই সময়ে পেন্টাভ্যালেন্ট (ডিপিটি, হেপাটাইটিস-বি, হিব), ওপিভি এবং পিসিভি টিকার ১ম ডোজ দিতে হয়। তারপর কমপক্ষে ৪ সপ্তাহ/২৮ দিনের ব্যবধানে এ সকল টিকার ২য় এবং ৩য় ডোজ দিতে হয়। শিশুর ২৭০ দিন পূর্ণ হলেই শিশুকে ১ম ডোজ এবং ১৫ মাস বয়স পূর্ণ হলেই ২য় ডোজ এমআর (হাম ও রুবেলা) টিকা দিতে হয়।

কিন্তু ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় গত একমাস যাবত বিসিজি টিকা ছাড়া শিশুদের কোন টিকা মজুদ ছিল না। জেলার ইপিআই স্টোরে গত একমাস যাবত পেন্টা (ডিপিটি, হেপ-বি, হিব), ওপিভি, পিসিভি, আইপিভি ও এমআর (হাম ও রুবেলা) টিকা মজুদ ছিল না। ফলে শিশুদের সময় অনুযায়ী টিকা গুলো দেওয়া যায়নি।
জেলার ইপিআই সুপারিন্টেন্ডেন্ট আমিনুল ইসলাম জানিয়েছেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় একবছরে ৯১ হাজার শিশুকে প্রতিটি টিকা দিয়ে থাকি। জেলার ৯৮টি ইউনিয়নের প্রতিটিতে ২৪টিকে টিকা কেন্দ্রে মাসে একবার করে টিকা দেওয়া হয়। এছাড়াও রয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও জেলা সদর হাসপাতালে ছুটির দিন ছাড়া প্রতিদিন টিকা দেওয়া হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন মোহাম্মদ একরাম উল্লাহ জানান, ‘সোমবার বিকেলে ইপিআই টিকা এসেছে। মঙ্গলবার থেকেই ইপিআই টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে।