আশুগঞ্জে স্কুলের তোরন নির্মান নিয়ে প্রতিবাদ ও সংবাদ সম্মেলন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া, 17 November 2022, 88 বার পড়া হয়েছে,

এহসানুল হক রিপন,ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে দূর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের বাউন্ডারি ও গেইট নির্মান করেন নোমান মিয়া এবং গেইটের তোরন তার পিতা আলহাজ্ব আব্দুর রউফ মিয়ার নাম লিখাইয়া নামফলক স্থাপন করেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

হাজ্বী জবর আলী মিয়ার ওয়ারিশ আবু আসাদ জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশুগঞ্জ, জেলা শিক্ষা অফিসার, আশুগঞ্জ থানা বরাবর লিখিত অভিযোগ করলে নোমানের ভাই দূর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রাসেল কে প্রশাসন অবগত করলে নামের ফলকটি খুলে ফেলে উক্ত গেইটে আরেকটি নাম ফলক স্থাপন করেন যাহার নামকরণ করা হয় দূর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয় ২ং গেইট অর্থায়নে জনাব আলহাজ্ব আব্দুর রউফ নাম ফলক নামে স্থাপন করেন যার বিরুদ্ধে হাজ্বী জবর আলী মিয়ার আরেক ওয়ারিশ মোঃআলী রিমন পিতা: মৃত শওকত আলী আরেকটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন জেলা প্রশাসক, জেলা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা শিক্ষা অফিসার আশুগঞ্জ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশুগঞ্জ, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশুগঞ্জ থানা বরাবর,পরবর্তীতে রিমন মিয়া সহ ৫ জনের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ ও সংবাদ প্রকাশ করেন নোমান মিয়া তারই প্রতিবাদে রিমন মিয়া সহ দূর্গাপুরের লোকজন ১৫/১১/২০২২ মঙ্গলবার বিকেলে স্থানীয় বাজারে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন এলাকাবাসী।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন রিমন মিয়া।সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন,সাবেক চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন, ইউপি সদস্য দেওয়ান,সাবেক সদস্য মিজান,যুদু মিয়া,ইছহাক মিয়া,জিল্লুর রহমান, জাহের মোল্লা, সামসু মিয়া,জয়ধর আলী,ফু্ল মিয়া,আজহার আলী বকসি প্রমুখ, বক্তারা বলেন নোমান মিয়ার এখানে কোন পৈতৃক সম্পত্তি নেই আমরা জায়গা দিয়ে স্কুলটি নির্মান করেছি কিন্তুু সে তার ক্ষমতার জোরে তার পিতার নামে নামফলকটি স্থাপন করেন আমরা এর সঠিক তদন্ত করে বিচার চাই। তারা আরো অভিযোগ করে বলেন স্কুল ম্যানেজিং কমিটির মেয়াদ অনেক আগেই শেষ হয়ে গেছে কিন্তুু নির্বাচন না দিয়ে নোমান মিয়া সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন আমরা চাই অতিদ্রুত স্কুল ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন হোক। এ বিষয়ে জানতে চাইলে দূর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রাসেল বলেন,এ ডি বি র একটি কাজ আসছিল এটা ঠিকাদার করছে আমরা করিনি,আমরা যদি এডিবির টাকা দিয়ে কাজ করে থাকি বা আমার ভাই করে থাকে তাহলে তদন্ত করলেই বুঝা যাবে।আমার আব্বার নামে নিজস্ব অর্থায়নে একটা তোরন নির্মান করেছি এটা তার ভেঙে ফেলছে।স্কুল ম্যানেজিং কমিটির বিষয়ে চেয়ারম্যান বলেন আমার ভাই নোমান স্কুলের সভাপতি গ্রামবাসী যদি চাই আমার ভাই সভাপতি থাকবে নয়তো থাকবেনা।এ বিষয়টি দ্রুত সমাধান হবে এমনটাই প্রত্যাশা এলাকাবাসীর।